ফ্রিডম বাংলা নিউজ

মঙ্গলবার, জুলাই ২৩, ২০২৪ |

EN

রাজনীতিবিদরা কে কোথায় ঈদ করবেন

স্টাফ রিপোর্টার | আপডেট: শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪

রাজনীতিবিদরা কে কোথায় ঈদ করবেন
ঈদুল আজহায় বেশির ভাগ রাজনীতিবিদ এবার নিজ এলাকায় অবস্থান করবেন। ঢাকায়ও কেউ কেউ থাকবেন। অনেকে আবার ঢাকায় ঈদের নামাজ শেষে নিজ এলাকায় যাবেন। যোগ দেবেন নানা সামাজিক অনুষ্ঠানে। ঈদের আগেও অনেকে নিজ এলাকায় ঘুরে এসেছেন। গরিব ও অসহায় মানুষের মাঝে ঈদসামগ্রী বিতরণ করেছেন। 

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতা যাবেন নিজ এলাকায়। স্থানীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

তবে সরকারবিরোধী আন্দোলনে ধারাবাহিক ব্যর্থতায় সতেরো বছর ক্ষমতার বাইরে বিএনপি। গুম-খুন, নির্যাতন ও কারাবন্দি নেতাকর্মীদের পরিবারের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগির বিষয়ে সিনিয়র নেতাদের বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে দলটির হাইকমান্ড। এছাড়া আন্দোলন অব্যাহত রাখার বার্তা নিয়েও এলাকায় যাবেন কেন্দ্রীয় নেতারা।  

সরকারের অধিকাংশ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ-সদস্যরাও নির্বাচনি এলাকায় যাচ্ছেন। ঈদের পরপরই আওয়ামী লীগের প্লাটিনামজয়ন্তী। ফলে ঈদ শেষে দ্রুতই ঢাকায় ফিরবেন দলটির নেতারা।     

এবারও নিজের সরকারি বাসভবন গণভবনে ঈদ উদযাপন করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঈদ উপলক্ষ্যে তিনি অডিও ও ভিডিও বার্তার মাধ্যমে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানাবেন। এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঢাকায় ঈদ করবেন।

রাজধানীর ইস্কাটনে নিজ বাসায় ঈদ উদযাপন করবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু। তিনি যুগান্তরকে জানান, নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে ঈদের একদিন পর নির্বাচনি এলাকায় যাবেন। উপদেষ্টা পরিষদের আরেক সদস্য তোফায়েল আহমেদ ঈদ করবেন ঢাকায়। 

নিজ এলাকা ফরিদপুরে ঈদ করবেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল­াহ। বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটনমন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান ঢাকায় ঈদ করবেন। নির্বাচনি এলাকা টাঙ্গাইলে ঈদ করবেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক। ঢাকায় ঈদ করবেন আরেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম নিজ এলাকা চাঁদপুরে ঈদ করবেন।

সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য এবং পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক ঈদ করবেন ঢাকায়। ঈদের পরের দিন নিজ নির্বাচনি এলাকা মোহাম্মদপুর সূচনা কমিনিউটি সেন্টারে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন তিনি। 

নিজ এলাকা কুষ্টিয়ায় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করবেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী ডা. দীপু মনিও নিজ এলাকা চাঁদপুরে ঈদ করবেন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ঈদ করবেন ঢাকায়। ঈদের নামাজ শেষে তিনি নিজ জেলা মাদারীপুরে যাবেন এবং মা-বাবার কবর জিয়ারত করবেন।  

দলের সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে ঢাকায় ঈদ করবেন বিএম মোজাম্মেল হক ও এমএম কামাল হোসেন। ঈদের দিন বিকালে নিজ নির্বাচনি এলাকায় যাবেন কামাল হোসেন। নির্বাচনি এলাকায় ঈদ করবেন আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম। আর দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী ঈদ করবেন চাঁদপুরে। কুমিল্লায় নিজ নির্বাচনি এলাকায় ঈদ করবেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর। চট্টগ্রামের নিজ এলাকায় ঈদ করবেন দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

অন্যদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় ঈদ করবেন। সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী এবার বড় ছেলে তারেক রহমান, দুই পুত্রবধূ ও নাতনিদের ছাড়াই ঈদ করবেন। তবে ভার্চুয়ালি তাদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন তিনি। এছাড়া বোন সেলিমা ইসলাম ও ভাই শামীম এস্কান্দারসহ পরিবারের কয়েকজন সদস্যও ঈদের দিন তার সঙ্গে সময় কাটাবেন। ওইদিন রাতে তার সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের দেখা করার কথা রয়েছে। এছাড়া ঈদের দিন সকালের দিকে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে ফাতেহা পাঠ ও দোয়া করবেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও ঈদের নামাজ আদায় করবেন নিজ এলাকা ঠাকুরগাঁওয়ে। সেখানে স্থানীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। ঈদের পরদিন ঢাকায় ফিরবেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দির সরকার, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান ও সেলিমা রহমান ঢাকায় থাকবেন। স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। সেখানেই ঈদ করবেন তারা। ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এবং সালাউদ্দিন আহমেদ বিদেশে রয়েছেন। সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ঢাকায় ঈদ করবেন।

এছাড়া দলটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেনসহ অনেকে ঢাকায় থাকবেন। আর ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বরকতল­াহ বুলু নোয়াখালীতে, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল নিজ এলাকা বরিশালে এবং আরেক উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু নাটোরে নিজ এলাকায় ঈদ করবেন।

যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ নিজ এলাকা মুন্সীগঞ্জে, আরেক যুগ্ম মহাসচিব শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি নিজ এলাকা ল²ীপুরে, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক রকিবুল ইসলাম বকুল ঢাকায় ও সহসাংগঠনিক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম সিরাজগঞ্জের নিজ এলাকায় থাকবেন। আরেক যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ময়মনসিংহের নিজ এলাকায় ঈদ করবেন। 

জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের রংপুরে ঈদ করবেন। বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুও নিজ এলাকা কিশোরগঞ্জে ঈদ করবেন।

এছাড়া এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের হাসানুল হক ইনু, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহŸায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ১২ দলীয় জোটের সমন্বয়ক বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা ঢাকায় ঈদ করবেন। 

জেএসডির আ স ম আবদুর রব ঢাকায় ও গণঅধিকার পরিষদের একাংশের সভাপতি নুরুল হক নুর নিজ এলাকা পটুয়াখালীর গলাচিপায় নিজ গ্রামে ঈদ করবেন। ১২ দলীয় জোটের মুখপাত্র বাংলাদেশ এলডিপির মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম নিজ এলাকা লক্ষীপুরের রামগঞ্জে ঈদ করবেন। আমার বাংলাদেশ পার্টির (এবি পার্টি) আহ্বায়ক এএফএম সোলায়মান চৌধুরী কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে ও সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মঞ্জুও নিজ এলাকা ফেনীতে থাকবেন।