ফ্রিডম বাংলা নিউজ

বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪ |

EN

মাদারীপুর হাতুড়িপেটা চিকিৎসাধীন অবস্থায় যুবক নিহত আটক ১

জেলা প্রতিনিধি | আপডেট: শুক্রবার, নভেম্বর ৪, ২০২২

মাদারীপুর হাতুড়িপেটা চিকিৎসাধীন অবস্থায় যুবক নিহত আটক ১
মাদারীপুর হাতুড়িপেটা চিকিৎসাধীন অবস্থায়   আজম মাতুব্বর(৩০) নামে এ মোবাইল মেকানিক নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় রাসেল খা(২৫) নামে একজনকে আটক করছে পুলিশ। 

শুক্রবার বেলা ৩ টার দিকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। 

নিহত আজম মস্তফাপুর ইউনিয়নের খৈয়ারভাঙ্গা গ্রামের রাজ্জাক মাতুব্বরের ছেলে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মাদারীপুরের মস্তফাপুরে প্রবাসীর তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীকে বিয়ে করায় দীর্ঘ দিন পারিবারিক কলহ চলে আসছিল এবং এই ঘটনায় নিহত আজম   গত মাসের ২০ তারিখ ঢাকা থেকে মস্তফাপুর একটি বাসায় ভাড়া থাকার জন্য আসে এরপর থেকেই আজমের স্ত্রী লিমার আগের স্বামী ও তার ভাইসহ কিছু সন্ত্রাসী তাকে মারার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে আসছে। এরপর  ১লা নভেম্বর রাতে  দোকানের কাজ শেষ করে ভাড়া বাসায় যাওয়ার পথে মস্তফাপুর পল্লী বিদ্যুৎ জামে মসজিদের সামনে আসার পরে সাজ্জাদ ঢালী, সোবাহান ঢালী, রাসেল খা,  মহাসিন মীর জীবন ঢালী, আবির ঢালীসহ কয়েকজন সন্ত্রাসীরা লোহা ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে  রাস্তা ফেলে রেখে যায়  । গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা মাদারীপুর সদর হাসপাতালে  ভর্তি করে এরপর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এই ঘটনায় রাসেল খা নামে একজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

জানা যায় এই সন্ত্রাসীরা এর আগেও এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ঘটিয়েছে এবং কিশোর গ্যাং নামে পরিচিত।  

নিহত আজমের স্ত্রী লিমা বলেন, আমার স্বামীকে আমার ভাইয়েরাসহ বিভিন্ন সাজ্জাদ ঢালী, সোবাহান ঢালী, রাসেল খা,  মহাসিন মীর, জীবন ঢালী, আবির ঢালীসহ কয়েকজন সন্ত্রাসীরা লোহা ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে  রাস্তা ফেলে রেখে গেছে। আমি তাদের আইনের মাধ্যমে ফাঁসী চাই। 

এদিকে অভিযুক্ত সবাই পলাতক থাকায় কারো সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

মস্তফাপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. হাবিব হাওলাদার জানান, এঘটনা যারা জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি ব্যবস্থা করা হোক।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনোয়ার চৌধুরী বলেন,  পারিবারিক ঘটনার জেরে এই ব্যাক্তিকে মারধর করে ফেলে রেখেছিল। এরপর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেছে। আমরা এই বিষয় মামলা নিয়ে আসামী গ্রেফতারের চেস্টা করবো। এবং ঘটনার পরে এলাকা থেকে একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানা আনা হয়েছে।