ফ্রিডম বাংলা নিউজ

বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪ |

EN

যার বোলিং তোপে হারল পাকিস্তান, কে সেই বোলার?

স্পোর্টস ডেস্ক | আপডেট: শুক্রবার, জুন ৭, ২০২৪

যার বোলিং তোপে হারল পাকিস্তান, কে সেই বোলার?
আইসিসির টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে ২ জুন। বিশ্বকাপের শুরুতে অঘটনের শিকার পাকিস্তান। আর এ বড় অঘটন ঘটাল যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার বাবর আজ়মদের হারিয়েছে তারা। পাকিস্তানকে সুপার ওভারে হারিয়ে নায়ক বনে যান ক্রিকেটার ও ইঞ্জিনিয়ার নেত্রভালকর। 

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে হারিয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ক্রিকেট বিশ্বকে স্তম্ভিত করে দিয়েছে তারা। সেই জয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল ভারতীয় বংশোদ্ভূত বোলার সৌরভ নেত্রভালকরের। এ বাঁহাতি পেসার সুপার ওভারে পাকিস্তানকে আটকে দেন। এর আগে ম্যাচও দুর্দান্ত বল করেছিলেন তিনি। 

পাকিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলা এই মারাঠি পেসার বর্তমানে ওরাকলের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করছেন। নেত্রভালকর পেশাদার ক্রিকেটার হওয়ার পাশাপাশি একজন সফল ইঞ্জিনিয়ারও। তাই বিশ্বকাপ খেলতে অফিস থেকে ১৭ জুন পর্যন্ত ছুটি নিয়েছেন তিনি। এ ছুটি নিয়ে খেলছেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

হিন্দুস্তান টাইমস আরও জানায়, পাকিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলা এই মারাঠি পেসার বর্তমানে ওরাকলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করছেন। আমেরিকায় গিয়ে কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি মাস্টার্স করেন। আর এখন ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করছেন তিনি। তার লিঙ্কডইন প্রোফাইল অনুযায়ী, সৌরভ নরেশ নেত্রভালকর ওরাকলের টেকনিক্যাল স্টাফের প্রিন্সিপাল সদস্য।
 
ভারতের মুম্বাইয়ে জন্ম নেওয়া নেত্রভালকর এর আগে ২০১০ সালে ভারতের অনূর্ধ্ব ১৯ দলের হয়ে খেলেছেন। সেই দলে ছিলেন কেএল রাহুল, মায়াঙ্ক আগরওয়াল, জয়দেব উনাদকাটরা। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটও মুম্বাইয়ের হয়েও খেলেছেন তিনি। কিন্তু সুযোগের অভাবে তিনি আমেরিকায় চলে যান। ২০১৮ সালে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্রিকেট দলে সুযোগ পান। 

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিন ম্যাচে ৩ উইকেট নিয়েছিলেন নেত্রভালকর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমেরিকার প্রথম ম্যাচে কানাডার বিপক্ষে অবশ্য তিনি উইকেট নিতে পারেননি। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। পরে সুপারওভারেও দুর্দান্ত বল করেন। ইফতিকার আহমেদকে আউট করে ম্যাচের মোড় নিজেদের দিকে ঘুরিয়ে দেন তিনি। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত আমেরিকার হয়ে তিনি ২৯টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। উইকেটের সংখ্যাও ২৯টি। আর আমেরিকার হয়ে তিনি ৪৮ ম্যাচ খেলে ৭৩ উইকেট নিয়েছেন।