ফ্রিডম বাংলা নিউজ

বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪ |

EN

বিএনপি নেতারা ট্রমায় ভুগছেন, যা খুশি তাই বলেন: ওবায়দুল কাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | আপডেট: রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

বিএনপি নেতারা ট্রমায় ভুগছেন, যা খুশি তাই বলেন: ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: জি এম মুজিবুর

বিএনপি নেতারা মানসিক ট্রমায় ভুগছেন, যা খুশি তাই বলেন। এমন মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার (১৯ মে) দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এমনটি বলেন।  

‘নির্বাচনে আওয়ামী লীগের লোকজনই ভোট দিতে আসেনি’- বিএনপি নেতাদের এমন দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির এ দাবি সত্য নয়। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, উপজেলা নির্বাচনে প্রথম ধাপে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ ভোট পড়েছে। জাতীয় নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৪২ শতাংশেরও বেশি। তারা কি এ দেশের মানুষ নয়? ৪২ শতাংশ যদি ভোট পড়ে, তাহলে ভোটাররা নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করলেন কেমন করে? আসলে বিএনপি নেতারা মানসিক ট্রমায় ভুগছেন, যা খুশি তাই বলেন ফ্রি স্টাইলে। বাস্তবতা নেই। তারা বাস্তবতা থেকে অনেক দূরে।

বিএনপি আবারও আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে, এমন প্রশ্নে ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির আন্দোলন করার অধিকার আছে । আন্দোলন শান্তিপূর্ণ হলে আমরা রাজনৈতিকভাবেই মোকাবিলা করব। আর যদি আন্দোলন রূপ নেয় আগুন সন্ত্রাসে, যে চেহারা তারা অতীতে দেখিয়েছে, তাহলে সরকার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ব্যবস্থা নেবে। রাজনৈতিকভাবে আমরাও মোকাবিলা করব।  

এর আগে মেট্রোরেলের ব্র্যান্ডিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা শহরের জরাজীর্ণ গাড়ি চলাচল নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল। তিনি বলেন, আফ্রিকার ছোট ছোট দেশগুলোর রাজধানীতে যে গাড়ি চলাচল করে, তা অনেক সুন্দর। ঢাকায়ও সর্বশেষ প্রযুক্তির এত সুন্দর কার, জিপ গাড়ি ব্যবহার করা হয়। বাসগুলোর কেন এত জরাজীর্ণ চেহারা? মেট্রোরেল আধুনিক গণপরিবহন। এখান থেকে বের হলে জীর্ণশীর্ণ গরিব চেহারার বাসগুলো দেখলে কেমন লাগে! এতে আমরা লজ্জা পাচ্ছি। মালিক সাহেবরা কি লজ্জা পাচ্ছেন না? এসব গাড়ি সরিয়ে নিতে দুই সিটি মেয়রের সহযোগিতা চাচ্ছি।  

সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিনুল্লাহ নূরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইয়োমা কিমিনুরি, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের মুখ্য প্রতিনিধি ইচিগুচি তমোহিদে ও ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক।