ফ্রিডম বাংলা নিউজ

মঙ্গলবার, জুলাই ২৩, ২০২৪ |

EN

শিশুর কপালে টিপ নয়, দোয়া পড়ুন

ধর্মকথা ডেস্ক | আপডেট: বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৬, ২০২৩

শিশুর কপালে টিপ নয়, দোয়া পড়ুন
আমাদের সমাজের বহুল প্রচলিত একটি রীতি হলো, মানুষের বদ নজর থেকে শিশুদের রক্ষার জন্য তার কপালে কালো টিপ দেওয়া। বিশেষ করে নবজাতককে বাড়ির বাইরে নিয়ে যাওয়ার সময় এ দৃশ্য প্রায়ই দেখা যায়।

বস্তুত বদ নজর থেকে হেফাজতের উদ্দেশে শিশুর কপালে টিপ দেওয়াকে ইসলাম সমর্থন করে না। ইসলাম মনে করে, এর ফলে বদ নজর রোধ করে না। শিশুকে বদ নজর ইত্যাদি থেকে রক্ষা করার জন্য কী করতে হবে? সে সম্পর্কে দিক নির্দেশনা রয়েছে ইসলামে।

এমনকি হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তা শিখিয়েছেন একাধিক হাদিসে। সহিহ বোখারির এক হাদিসে এসেছে, হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হজরত হাসান ও হজরত হোসাইন (রা.)-এর জন্য এই দোয়া পড়ে আল্লাহতায়ালার কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করতেন।

দোয়াটি হলো-

أُعِيْذُكُمَا بِكَلِمَاتِ اللهِ التَّامَّةِ مِنْ كُلِّ شَيْطَانٍ وَّهَامَّةٍ وَّمِنْ كُلِّ عَيْنٍ لاَمَّةٍ

উচ্চারণ: উয়িযুকুমা বিকালিমাতিল্লাহিত তাম্মাতি মিন কুল্লি শাইতানিন ওয়া হাম্মাতিন ওয়া মিন কুল্লি আইনিন লাম্মাতিন।

অর্থ: সব শয়তান, কীটপতঙ্গ ও বদনজর হতে তোমাদেরকে আল্লাহর পূর্ণাঙ্গ কালেমাসমূহের আশ্রয়ে দিচ্ছি। -কানজুল উম্মাল

দোয়াটি এক সন্তানের জন্য পড়লে ‘উয়িযুকা’, দুইজনের জন্য ‘উয়িযুকুমা’ আর দুইয়ের অধিক হলে ‘উয়িযুকুম’ বলতে হবে। এর সঙ্গে আয়াতুল কুরসি, তিন কুল ও হাদিসের অন্যান্য দোয়া তো আছেই।  

বলা হয়, হজরত ইবরাহিম (আ.) তার ছেলে হজরত ইসহাক (আ.) এবং হজরত ইসমাইলকে (আ.) এই দোয়ার মাধ্যমে ঝাড়-ফুঁক করতেন।